বাংলাদেশের এক সময়ের জনপ্রিয় সংগীতশিল্পী বিপ্লব। এই জনপ্রিয় সংগীতশিল্পী ব্যান্ড প্রমিথিউসের সাথে দীর্ঘদিন ছিলেন। তিনি বিভিন্ন অনুষ্ঠানে গিয়ে শ্রোতাদের মাতিয়ে রাখতেন। আর এ কারণে এই সংগীতশিল্পীর অসংখ্য ভক্ত হয়। এদিকে, এই জনপ্রিয় সংগীতশিল্পী দীর্ঘদিন ধরে যুক্তরাষ্ট্রে বসবাস করছেন। সেখানে তার পরিবার নিয়ে বর্তমানে অনেক ভালো আছেন। তার সংসারে রয়েছে দুই পুত্র, এক কন্যা। আর বর্তমানে করোনা ভাইরাসের পরিস্থিতিতে এই জনপ্রিয় সংগীতশিল্পী তার পুরো পরিবার নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কের কুইন্সে বসবাস করছেন।

আরো পড়ুন

Error: No articles to display


এক সময়ের দাপুটে সংগীতশিল্পী বিপ্লব এখন ট্যাক্সি চালক। এমন খবরে ভক্ত ও শুভাকাঙ্ক্ষীরা অবাক হবেন এটাই স্বাভাবিক। কিন্তু বিপ্লব এতে মোটেও বিব্রত নন। বিপ্লবের ভাষায়—আমি ট্যাক্সি জবে আছি, বলতে সংকোচ বোধ করি না। আমি তো চুরি করছি না। মানুষকে সেবা দিচ্ছি, বিনিময়ে টাকা নিচ্ছি। যুক্তরাষ্ট্রে আসার পর আমার অনেক বড় অভিজ্ঞতা হয়েছে। বিদেশ বলতে দেশে বসে যা বুঝি, বিদেশ আসলে মোটেও তা নয়। আমেরিকার লাইফ আমাকে অনেক কিছু শিখিয়েছে, অভিজ্ঞতা অর্জন করেছি, যা আমার পরবর্তী জীবনে কাজে দেবে।

করোনার এই সংকটে ট্যাক্সি সার্ভিস করা যথেষ্ট ঝুঁকিপূর্ণ। তাও স্থানীয় একটি হাসপাতালের সঙ্গে কাজ করছেন বিপ্লব। বিষয়টি জানিয়ে এ শিল্পী বলেন—জরুরি কাজে প্রায় দিনই বের হতে হয়। পরিবারের সবার নিরাপত্তার কথা ভেবে ওদের বাসার পাশেই এক রুমের বাসায় থাকছি। সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে প্রতিদিনই দেখা করছি।

সময়ের কারণে একটা শুন্যতা তৈরি হলেও গান ছেড়ে দেননি বিপ্লব। বরং গান তার অস্তিত্বে মিশে আছে। নিয়মিত গিটারের প্র্যাকটিস করছেন। নতুন নতুন গান লিখছেন বলেও জানান তিনি।

তিনি আরও বলেন, আমি স্বাধীনমতো কাজ করছি। এখানে খবরদারি করার কেউ নেই। তিনি আরও বলেন এখানে ভালো কিছু করতে হলে পড়াশোনা করতে হয়। তবে এখন সেই সময় নেই। আর এ কারণে এই কাজ কারছি। দেশের মাস্টার্স ডিগ্রি দিয়ে এ দেশে কিছু করা যায় না। ভালো কিছু করতে হলে এই দেশে পড়াশোনা করতে হয়। তবে এখন আর সেই সময় নেই। এখন আমার ছেলে মেয়েরা পড়াশোনা করবে তাদের সেভাবেই তৈরি করছি। তিনি বলেন আমি এই সকল কথা না বলেও পারতাম তবে আমি কোনো কিছু লোকোচুরি করতে পছন্দ করি না। আর এ জন্য আমার ট্যাক্সি চালানোর বিষয়টিও লুকাইনি।

আরো পড়ুন

Error: No articles to display