বিশ্বের অন্যান্য দেশের মতো পাকিস্তানে দিন দিন করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ বেড়েই চলেছে। দেশটিতে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণের সাথে সাথে প্রাণ যাওয়ার সংখ্যাও দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। আর এই করোনা ভাইরাস থেকে রক্ষা পাওয়ার জন্য দেশেটি দীর্ঘ দিন ধরে লকডাউন করে রাখ হয়। তবে এরপরও দেশটিতে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ কমেনি। তবে এরপর দেশের বিভিন্ন স্থানে লকডাউন শিথিল করা হয়। এরপর ভিন্ন ভাবে দেশটি লকডাউন পালন করছে। এবার সেই বিষয়ে কথা বলেছেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান।

আরো পড়ুন

Error: No articles to display



করোনা ভাইরাসের বিস্তার ঠেকাতে পাকিস্তানে স্মার্ট লকডাউন প্রয়োগ করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। এছাড়া পাকিস্তানকে স্মার্ট লকডাউন পদ্ধতির অগ্রদূত বলেও আখ্যায়িত করেছেন প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। একটি টুইট বার্তায় ইমরান খান এসব বলেন।

টুইট বার্তায় ইমরান খান বলেন, আমরা এই পদ্ধতির অগ্রদূতদের মধ্যে অন্যতম একটি দেশ। পুরো লকডাউন না করে যে স্থানটি করোনার হটস্পট হিসেবে চিহ্নিত হচ্ছে সেই স্থানেই লকডাউন করা হচ্ছে।

দেশের অর্থনীতির ধস ঠেকানোর জন্য করোনা প্রকোপ থাকলেও লকডাউন তুলে নেয়ার ঘোষণা দেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। করোনা মহামারি পরিস্থিতি এই ভাইরাস নিয়েই বেঁচে থাকতে জনগণের প্রতি আহবানও জানিয়েছেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান।

এদিকে লকডাউন তুলে নেয়ার পর পাকিস্তানে প্রতিনিয়ত বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যা। গত ২৪ ঘণ্টায় পাকিস্তানে রেকর্ড ৫ হাজার ৮০ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন।

ওয়ার্ল্ডওমিটারের দেয়া তথ্য অনুযায়ী, পাকিস্তানে এ পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৯৩ হাজার ৯৮৩ জন। মা’রা গেছেন ১ হাজার ৯৩৫ জন।


এদিকে, এই দেশটির অর্থনৈতিক অবস্থা একেবারে ভালো নয়। আর এরপর করোনা ভাইরাসের কারণে দেশটির অর্থনীতি একে বারে ভেঙে পড়েছে। তবে দেশটিতে দিন দিন করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ বেড়েই চলেছে। এ জন্য দেশটি এখন ভিন্ন ভাবে লকডাউন করছে। এ জন্য দেশটি প্রথমে দেশের সেই সকল এলাকা চিহ্নিত করছে যেখানে করোনা ভাইরাস বেশি ছড়িয়েছে। আর তারপর সেই এলাকা লকডাউন করার ঘোষণা করছে।

আরো পড়ুন

Error: No articles to display