দেশে স্বর্ন চোরাচালানের ব্যপক ছড়াছড়ি, বিভিন্ন কায়দায় অবৈধ ভাবে দেশে আনা হচ্ছে বিপুল পরিমান স্বর্ন। স্বর্ণ চোরাচালান রোধে এবং স্বর্ণ ব্যবসায়ীদের লাইসেন্স দিতে দেশজুড়ে প্রথমবারের মতো চলছে স্বর্ণ মেলা মেলার প্রথম দিন রোববার প্রায় ২৫ কোটি টাকার অঘোষিত স্বর্ণ, রুপা ও হিরা বৈধ করেছেন ব্যবসায়ীরা।

আরো পড়ুন

Error: No articles to display


জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) সদস্য কানন কুমার রায় এ তথ্য জানিয়েছেন।

তিনি বলেন, ’রোববার তিনজন বিশিষ্ট ব্যবসায়ী তাদের প্রায় ২১ কোটি টাকার সোনা, রুপা ও হিরা বৈধ করেছেন।’

এই ব্যবসায়ীরা হলেন- ছেলের ধর্ষণকাণ্ডে আলোচিত আপন জুয়েলার্সের মালিক গুলজার আহমেদ সেলিম, ভেনাস জুয়েলার্সের মালিক ও বাংলাদেশ জুয়েলার্স সমিতির সভাপতি গঙ্গা চরণ মালাকার এবং ডায়মন্ড ওয়ার্ল্ডের মালিক ও সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক দিলীপ কুমার আগরওয়ালা।

এর আগে রোববার রাজধানীর ইন্টারকন্টিনেন্টাল হোটেলে তিন দিনব্যাপী ’স্বর্ণ মেলা’র উদ্বোধন করেন এনবিআর চেয়ারম্যান মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়া।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি বলেন, স্বর্ণ ব্যবসায়ীদের লাইসেন্স দিতে বাংলাদেশ ব্যাংককে পাঁচ লাখ টাকা ফি জমা দিতে হবে। এছাড়া লাইসেন্স তিন বছর পর নবায়ন করতে ১ লাখ টাকা দিতে হবে।
এনবিআর চেয়ারম্যান আরও বলেন, ’স্বর্ণ চোরাচালানের সঙ্গে মধ্যবিত্ত ব্যবসায়ীরা জড়িত নন। চোরাচালানে একটি বিশেষ গোষ্ঠী রয়েছে, যারা এখন আর সুবিধা করতে পারবেন না।’

জানা গেছে, ঢাকার মতো চট্টগ্রামেও এই মেলা চলবে তিন দিন। আর দেশের অন্যান্য বিভাগীয় শহরে মেলা চলবে দুই দিন।

মেলায় প্রতি ভরি সোনা ও সোনার অলংকারে ১ হাজার টাকা কর দিয়ে বৈধ করতে পারবেন ব্যবসায়ীরা। এ ছাড়া প্রতি ভরি হিরায় ৬ হাজার টাকা ও রুপায় ৫০ টাকা কর দিয়ে বৈধ করার সুযোগ থাকছে।


সর্ন মেলায় প্রতি ভরি সোনা ও সোনার অলংকার বৈধ করতে গেলে ১ হাজার টাকা কর দিতে হবে এছাড়া হিরাতে ভরি প্রতি ৬ হাজার এবং ৫০ টাকা কর দিয়ে বৈধ করা যাবে

আরো পড়ুন

Error: No articles to display