গা থেকে দুর্গন্ধ বের হবার অভিযোগ। তার জেরে উড়ান বাতিল হল এক ইহুদি দম্পতির। শিশুকন্যাকে কোলে নিয়ে বিমান থেকে নেমে যেতে হল তাদের।

আরো পড়ুন

Error: No articles to display

সম্প্রতি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের মায়ামি বিমানবন্দরে ঘটনাটি ঘটেছে। তবে যাবতীয় অভিযোগ খারিজ করেছেন ওই দম্পতি। বিমান সংস্থার বিরুদ্ধে পাল্টা ধর্মীয় বিদ্বেষের অভিযোগ তুলেছেন তারা।
জানা গেছে, আদতে মিশিগানের ডেট্রয়েট শহরের সাউথফিল্ড এলাকার বাসিন্দা ইয়োশি এবং জিনি অ্যাডলার। ১৯ মাসের শিশুকন্যাকে নিয়ে মায়ামি বেড়াতে এসেছিলেন। ২৩ জানুয়ারি রাতে আমেরিকান এয়ারলাইন্সের একটি বিমানে বাড়ির ফেরার কথা ছিল। সেখানেই হেনস্থার শিকার হতে হয় তাদের।
বিমানবন্দরের নিরাপত্তা বলয় পেরিয়ে মেয়েকে নিয়ে বিমানে উঠেন ইয়োশি এবং জিনি। কিন্তু উড়ানের কিছু ক্ষণ আগে তাদের বিমান থেকে নেমে যেতে বলেন বিমানকর্মীরা। বলা হয়, তাদের গা দিয়ে দুর্গন্ধ বের হচ্ছে। তাতে টিকতে পারছেন না সহযাত্রীরা। বিমানকর্মীদের কাছে একাধিক অভিযোগ জমা পড়েছে। তাই নেমে যেতে হবে তাদের। তারপর একরকম জোর করেই বিমান থেকে নামিয়ে দেওয়া হয় তাদের। মুখের উপর বন্ধ করে দেওয়া হয় দরজা। কাঁধের ব্যাগটুকু ছাড়া, বাকি জিনিসপত্র পর্যন্ত নিতে দেওয়া হয়নি।
এক বিমানকর্মীর সঙ্গে ওই দম্পতির বচসার একটি ভিডিও প্রকাশ পেয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। তাতে ওই বিমানকর্মীকে বলতে দেখা গেছে, ধর্মীয় কারণে আপনি রোজ গোসল করেন না। তাই তো?
প্রত্যুত্তরে ইয়োশি বলেন, একেবারেই নয়। রোজ গোসল করি আমরা। আজও করেছি। কিন্তু তার কথায় আমল দিতে দেখা যায়নি ওই বিমানকর্মীকে।
গোটা ঘটনায় হতভম্ব হয়ে বিমানবন্দরের অন্যান্য যাত্রীদের কাছে এগিয়ে যান ইয়োশি ও জিনি। জানতে চান, সত্যি সত্যি তাদের গা থেকে দুর্গন্ধ বের হচ্ছে কিনা। প্রশ্ন শুনে অবাক হন সকলেই। বিমানকর্মীদের আচরণের তীব্র দুঃখ প্রকাশ করেন। পর দিন অন্য একটি বিমানে চড়ে মিশিগান ফিরে আসেন ওই দম্পতি।
পরে মার্কিন চ্যানেল এনবিসিকে দেওয়া সাক্ষাত্কারে ইয়োশি জানান, অত্যন্ত অসহায় বোধ করছি। জবাব দিতে হবে আমেরিকান এয়ারলাইন্সকে। আমাদের বিমান থেকে নামিয়ে দেওয়ার আসল কারণ জানাতে হবে।
বিমান থেকে ব্যাগপত্র নামিয়ে দেওয়া প্রতিশ্রুতি দেওয়া হলেও আদতে তা হয়নি। ডেট্রয়েট ফিরে জিনিসপত্রের নাগাল মেলে বলে অভিযোগ করেন তিনি।
বিষয়টি সামনে আসতেই সমালোচনার ঝড় উঠেছে সর্বত্র। কিন্তু দোষ স্বীকার করো তো দূর, বরং বিবিৃতি জারি করে গোটা ঘটনায় সাফাই দিয়েছেন আমেরিকান এয়ারলাইন্স কর্তৃপক্ষ।
তাদের দাবি, অনেকেই ওই দম্পতির বিরুদ্ধে অভিযোগ করেন। তাই নামিয়ে দেওয়া হয়। তবে রাত কাটানোর জন্য হোটেলের ব্যবস্থা করে দেওয়া হয়েছিল। জোগানো হয়েছিল খাবারও। পরদিন অন্য একটি বিমানে আসনের ব্যবস্থাও করে দেওয়া হয়।
কিন্তু যে কারণে এত বিতর্ক, সেটিকে গুরুত্ব দেননি তারা বরং পাল্টা যুক্তি দেখান, নিয়ম বহির্ভূত কিছু করেননি বিমানকর্মীরা। কারণ বিমানসংস্থার নিয়মাবলীতেই বলা রয়েছে, শারীরিক অসুস্থতা ছাড়া কারও গা থেকে দুর্গন্ধ বের হলে, সেই ব্যক্তিকে বিমান থেকে নামিয়ে দিতে পারেন বিমানকর্মীরা।

আরো পড়ুন

Error: No articles to display