এবার ইশরাকের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করলো আদালত

তত্ত্বাবধায়ক সরকারসহ বিভিন্ন ইস্যুতে ক্ষমতাসীন আওয়ামীলীগ বিরুদ্ধে আন্দোলন করছে বিএনপি। দীর্ঘ দিন ক্ষমতার বাইরে থাকায় সাংগঠনিক ভাবে দুর্বল হয়ে যাওয়া বিএনপি হঠাৎ করে রাজনীতি মাঠে চাঙ্গা হয়ে উঠায় সরকারের চিন্তার কারন হয়ে দাঁড়িয়েছে। যার কারনে সরকার বিভিন্ন কৌশলে বিএনপির আন্দোলকে প্রতিহত করার চেষ্টা করছে দাবি বিএনপির। এর কৌশল হিসেবে বিএনপি নেতাকর্মীদের ধরপাকড় শুরু করেছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। হঠাৎ করে বিএনপির নেতা ইশরাকের বিরুদ্দে গ্রেফতারের পর পরোয়ানা জারি সম্পর্কে যা জানাগেল।

রাজধানীর মতিঝিলে বাংলাদেশ ব্যাংকের সামনে গাড়ি পোড়ানোর মামলায় বিএনপি নেতা ইশরাক হোসেনের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেছেন আদালত।

সোমবার (৫ ডিসেম্বর) ঢাকার মহানগর হাকিম রাজেশ চৌধুরী সময়ের আবেদন নাকচ করে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেন।

আদালত সূত্রে জানা যায়, ২০২০ সালের ১২ নভেম্বর ঢাকার ১৮টি আসনের নির্বাচন বানচালের লক্ষ্যে আসামিরা একত্রিত হয়ে মতিঝিলে বাংলাদেশ ব্যাংকের বিপরীতে অগ্রণী ব্যাংকের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের গাড়িতে আ/গুন দেয়।প্রাণে বেঁচে যান গাড়ির যাত্রীরা। এ ঘটনায় পুলিশের উপ-পরিদর্শক আতাউর রহমান ভূঁইয়া বাদী হয়ে মতিঝিল থানায় বিএনপি নেতা ইশরাকসহ ৪২ জনের বিরুদ্ধে মামলা করেন।

এ মামলায় চলতি বছরের ৬ এপ্রিল আদালত গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করলে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। পরে ১২ এপ্রিল জামিনে মুক্তি পান তিনি। মামলার তদন্ত চলছে। তবে জামিনে মুক্তি পাওয়ার পর নিম্ন আদালতে হাজির হওয়ার কথা থাকলেও তিনি হাজির না হওয়ায় তার বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করা হয়।

প্রসঙ্গত, সমাবেশকে কেন্দ্র করে বিএনপির নেতাকর্মীদের আটক করার উদ্দেশ্যে এমন কর্মকান্ড করেছে সরকার বলে বিএনপি শীর্ষ নেতারা দাবি করছেন। বিএনপির দাবি এসব পরিকল্পনা করে ঘটাচ্ছে সরকার।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *