এবার ভালোবাসার টানে তাইওয়ান তরুণী বাংলাদেশে

ভালোবাসার টানে দেশান্তর নয় কোন ঘটনা নয়। প্রিয় মানুষটিকে পেতে পৃথিবীর যে কোন প্রান্তেই যেতে পিছুপা হয় না। জাতি, ধর্ম, বর্ণ কোনো বাধাই যেন থামাতে পারে না তাদের। তেমন ঘটনা এবার ঘটলো ভালোবাসার টানে তাইওয়ানের এক তরুণী ছুটে এলো বাংলাদেশে।

ভালোবাসা মানে না ধর্ম-বর্ণ-গোত্র-দেশ। সেটা আবারও প্রমাণিত হলো। তাইওয়ানের এক তরুণী শরীয়তপুরের এক যুবকের প্রেমে পড়ে বাংলাদেশে পাড়ি জমান।

তরুণীর নাম লিইউ হুই (৩১)। বৃহস্পতিবার (২৪ নভেম্বর) বিকেলে তাদের বিয়ে হয়। (বুধবার ২৩ নভেম্বর) গায়েহলুদ ছিল তাদের।

বর শরীয়তপুরের নদীয়া পৌরসভার ৮নং পশ্চিম লোনশিং গ্রামের মৃ/ত জামাল উদ্দিন ছৈয়ালের ছেলে রমজান ছৈয়াল (৩৪)। তাইওয়ানের মেয়ে লিইউ হুই এর নাম পরিবর্তন করে নিনা ছৈয়াল রেখা হয়েছে।

সোমবার (২১ নভেম্বর) মা-বাবা ও ভাইকে নিয়ে বাংলাদেশে আসেন নিনা। ওই দিন ঢাকা আদালতে আইনজীবীর মাধ্যমে নীনা বৌদ্ধ পরিবর্তন করে ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করেন। পরদিন তারা শরীয়তপুরে রমজানের বাড়িতে আসেন।

রমজান জানান, মাধ্যমিক পাস করে ছয় বছর আগে তিনি মালদ্বীপে যান। সেখানে তিনি এবং নিনা একটি কোম্পানিতে কাজ করেন। অবশেষে তারা বন্ধু হয়ে যায়। পরে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে।

দুই বছর আগে রমজান বাংলাদেশে চলে আসেন এবং নিনা তাইয়ান ফিরে যান। তবে ফোন ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তাদের মধ্যে যোগাযোগ সক্রিয় রয়েছে। পরে নিনা দুবাইয়ে চাকরি পান। সেই সু/বাদে নিনার টানে রমজানও দুবাই যান।

নববধূ নীনা ছৈয়াল বলেন, ‘আমি বাংলাদেশকে ভালোবাসি। আমিও রমজানকে ভালোবাসি। তাকে বিয়ে করে আমি খুশি।

রমজানের ভাতিজি নিশি আক্তার বলেন, “ভাষার কিছু সমস্যা থাকলেও কাকি সব কিছুতেই মানিয়ে নিচ্ছেন। তিনি বাংলা পোশাকও পরেছেন।

নড়িয়া পৌরসভার সাবেক মেয়র শহিদুল ইসলাম বাবু রাড়ি বলেন, তাদের সঙ্গে কথা হয়েছে। তারা আমাদের আতিথেয়তায় মুগ্ধ। দোয়া করি এই দম্পতি সুখী হোক।

প্রসঙ্গত, ভালোবাসার মানুষকে পেয়ে খুশি বলে জানান ওই তাইওয়ান তরুণী। স্বামীর পরিবারের সঙ্গে মানিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করছে বলে রমজানের পরিবার সদস্যরা জানিয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *