এবার সন্তান বীরকে নিয়ে ভিন্ন ইঙ্গিত দিলেন বুবলী

হালের আলোচিত অভিনেত্রী শবনম বুবলী। অভিনয় দক্ষতায় খুব স্বল্প সময়ে নিজের আদিপাত্য বিস্তার করেছেন মিডিয়া জগতে। শুধু অভিনয় নয় ব্যক্তিগত বিভিন্ন ঘটনার মাধ্যমে প্রায় খবরের শিরোনাম হয়ে থাকেন তিনি। সম্প্রতি শাকিব খানের সাথে বিয়ে ও সন্তানের কথা প্রকাশ্যে আনার পর ব্যাপক আলোচিত হয়েছিলেন তিনি। শাকিব খানের সঙ্গে সম্পর্কের টানাপোড়ন ও ছেলের বিষয় নিয়ে যা জানালেন অভিনেত্রী শবনম বুবলী।

ক্যারিয়ারের শুরু থেকেই মিডিয়াসহ বিভিন্ন গণমাধ্যমে আলোচিত-সমালোচিত জনপ্রিয় অভিনেত্রী বুবলী। এমনকি শাকিব খান ও অপু বিশ্বাসের সংসার ভাঙার জন্য এই নায়িকাকে দায়ী করছেন অনেকে। এরমধ্যে শাকিব বুবলীকে বিয়ে করেছেন বলে জানা যায়। তাদের দাম্পত্য জীবন চার বছরের। এর মধ্যে তারা সন্তানের মা-বাবা হন। শেহজাদ খান বীর নামের সন্তানের বয়সও প্রায় তিন বছর। কিন্তু অপুর মতোও শাকিব বুবলীর সঙ্গে সংসার করতে নারাজ। এটি বিভিন্ন সময়ে গণমাধ্যমে প্রকাশিতও হয়েছে। এবার বুবলী জানালেন তার ভেতরের অনেক তথ্য।

৪ ডিসেম্বর সন্ধ্যায় এক ভিডিও বার্তায় বুবলী তাকে নিয়ে বিভিন্ন সমালোচনার জবাব দেন। ৪২ মিনিটের এই ভিডিওতে বুবলী দাবি করেছেন, শাকিব খান তার বা তার ছেলের কোনো খরচ দেন না। ভিডিওতে বুবলী তার সন্তানকে উ/দ্দেশ্য করে বলেন, ‘বাবা শেহজাদ, মা হয়তো সারাজীবন তোমার সাথে থাকবে না বাবা। কিন্তু অন্য মায়ের মতো আমিও তোমার জন্য অনেক কষ্ট করেছি। হয়তো আমি তোমাকে সেরাটা দিতে পারিনি। কিন্তু আমি তোমাকে খুব ভালোবাসি। আমি তোমার পাশে ছিলাম এবং থাকবো। মানুষের মতো মা/নুষ হও বাবা।

এমন বার্তা প্রকাশের পর অনেকের মনেই প্রশ্ন জাগে, সন্তান শেহজাদ খান বীর কি বুবলীর সঙ্গে নেই? নাকি শাকিব খান তার সন্তানকে নিয়ে গেছেন? এসব প্রশ্নের উত্তর পেতে দেশের একটি জনপ্রিয় সংবাদমাধ্যম বারবার ফোনকল ও টেক্সট মেসেজ পাঠায়। কিন্তু ওপ্রান্ত থে/কে (প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত) কোনো জবাব পাওয়া যায়নি। তবে বুবলীর ঘনিষ্ঠদের মতে, শেহজাদ খান বীর এখনও বুবলীর সঙ্গেই রয়েছেন। হয়তো শাকিব তাকে নিয়ে যাবেন, বুবলী তার সন্তানের বিষয়ে সবাইকে আগাম বার্তা দিয়েছেন।

প্রসঙ্গত, সন্তান ভবিষ্যতে তার সঙ্গে নাও থাকতে পারে এমন কিছুই বুঝানোর চেষ্টা করেছ অভিনেত্রী বুবলী। তবে বিষয়টি সম্পর্কে এখনো কোন তথ্য প্রকাশ করেননি তিনি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *