ঐন্দ্রিলা মারণরোগের বিরুদ্ধে যেভাবে লড়াই করেছে, তা দৃষ্টান্ত হয়ে থাকবে : মমতা

মেয়েটি চ/লেই গেল। সব্যসাচীর সর্বক্ষণের সঙ্গী আর নেই। যে বাবা তার মেয়েকে এতদিন ক্যানসারের সঙ্গে লড়াই করতে উৎসাহ দিয়েছিলেন সেই বাবা চোখের জল ধরে রাখতে পারছেন না।

অভিনেত্রী ঐন্দ্রিলার মৃ/ত্যুতে শোকপ্রকাশ করেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও।

তিনি ঐন্দ্রিলাকে ‘যোদ্ধা’ বলছেন। শোক বার্তায় কুর্নিশ জানিয়ে লিখেছেন, ‘এই প্রতিশ্রুতিশীল তরুণ অভিনেত্রীর বয়স ছিল মাত্র ২৪ বছর। মমতা আরও লিখেছেন, “পশ্চিমবঙ্গ সরকার তাকে ‘অসাধারণ প্রত্যাবর্তন’ বিভাগে এই বছর টেলিসাম্মান পুরস্কার দিয়েছে।”

তিনি আরও লিখেছেন, ঐন্দ্রিলা মারণরোগের বিরুদ্ধে যেভাবে লড়াই করেছে, তা দৃষ্টান্ত হয়ে থাকবে। ‘

ব্রেন স্ট্রোকের পর তিনি ধীরে ধীরে সুস্থ হয়ে উঠছিলেন। এরপর ১৬ নভেম্বর সকালে দুটি কার্ডিয়াক অ্যারেস্ট হয়। তারপর অবস্থা খুবই খারাপ হয়।. এমনকি ওই রাতেই অভিনেত্রীর মৃ/ত্যুর খবর ছড়িয়ে পড়ে। মাঝরাতে সব্যসাচীকে ফেসবুকে লিখতে হয়, ‘ওকে আর একটু থাকতে দাও। পরে সময় পাবে এগুলো লিখতে। ‘

এরপর শুক্রবার সব্যসাচী বলেন, ঐন্দ্রিলা আগের থেকে ভালো আছেন। কোন সার্পোট ছাড়া আছে। ভেন্টিলেশন থেকে বেরিয়ে আসার চেষ্টাও করছেন অভিনেত্রী। শুনে সবাই হাঁপ ছেড়ে বেঁচেছিল এক প্রকার।

কিন্তু শনিবার ফের কার্ডিয়াক অ্যারেস্ট। এইবার ১০ বার। অভিনেত্রী ঐন্দ্রিলা শর্মা ২০ নভেম্বর স্থানীয় সময় দুপুর ১২.৫৯ মিনিটে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন অভিনেত্রী ঐন্দ্রিলা শর্মা।

প্রসঙ্গত, অভিনেত্রীর প্রয়াণে শোক প্রকাশ করেন পুশ্চিমবঙ্গের মূখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও। তিনি বলেন, এতো কম বয়সে তার বিদায় খুবই হৃদয় বিদারক।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *