হঠাৎ করে জ্যাকুলিনের বিরুদ্ধে নোরার মামলা, বেরিয়ে এলো গোপন তথ্য

বর্তমান বলিউডের আলোচিত অভিনেত্রীদের মধ্যে অন্যতম নোরা ফাতিহি। ফ্যাশান সচেতনতা ও নিজেকে আবেদনময়ী হিসেবে উপস্থাপনের কারনে তিনি এখন অনেকে তরুণদের নিকট পরিচিত মুখ। অভিনয় পাশাপাশি বিভিন্ন ঘটনার জন্ম দিয়ে প্রায় খবরের শিরোনামে হয়ে থাকেন। এবার অভিনেত্রী জ্যাকুলিন ফার্নান্দেজের বিরুদ্ধে মামলার বিষয় প্রসঙ্গে যা জানালেন অভিনেত্রী নোরা ফাতিহি।

বলিউডের জনপ্রিয় অভিনেত্রী নোরা ফাতিহি। সম্প্রতি বলিপাড়ার আরেক জনপ্রিয় অভিনেত্রী জ্যাকুলিন ফার্নান্দেজের বিরুদ্ধে মামলা করেছেন এই অভিনেত্রী। জানা গেছে, জ্যাকুলিনসহ প্রায় ১৫টি গণমাধ্যমের বিরুদ্ধে মানহানির মামলা করেছেন নোরা।

ভারতীয় গণমাধ্যমে বলা হয়েছে, সোমবার (১২ ডিসেম্বর) দিল্লির আদালতে নোরা ফাতিহি মামলাটি দায়ের করেন। অভিনেত্রীর অভিযোগ, ভারতীয় মিডিয়া তার বিরুদ্ধে জ্যাকুলিন ফার্নান্দেজের করা কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য সামনে আনছে।

নোরা অভিযোগে লিখেছেন, জ্যাকুলিন শুধু মানহানিই করেননি, ফৌজদারি অপরাধ করেছেন। সে তার নিজের স্বার্থে আমার ক্যারিয়ার নষ্ট করতে চেয়েছিলেন তিনি।

কারণ আমরা দুজনেই ইন্ডাস্ট্রিতে একই রকম কাজ করি। অভিনেত্রীর বিরুদ্ধে একাধিক অভিযোগ তুলে মানহানির মামলা করেন নোরা।

কারণ জ্যাকুলিন পিএমএলএ আদালতে অভিযোগও দায়ের করেছেন। চার্জশিট অনুসারে, জ্যাকলিনকে ইডি একটি মিথ্যা মামলায় ফাঁসিয়েছে, যেখানে তিনি ছাড়াও নোরা ফাতেহি সহ আরও কিছু সেলিব্রিটি সুকেশ চন্দ্রশেখরের কাছ থেকে দামী উপহার পেয়েছেন এবং সেটার উপযুক্ত সা/ক্ষীও রয়েছেন।

তবে নোরা সেই অভিযোগ অস্বীকার করে বলেছেন, সুকেশের সঙ্গে নোরার কোনো সম্পর্ক নেই। অভিনেত্রী বলেছিলেন যে তিনি তার কাছ থেকে কোনও উপহারও পাননি। জ্যাকুলিনের প্ররোচনায় মিডিয়া নোরাকে হয়রানি করছে বলেও দাবি করেন তিনি।

এর আগে জ্যাকুলিনের বিরুদ্ধে ২০০ কোটি টাকার ঘুষের মামলা দা/য়ের করে ইডি। এই কারণেই সম্প্রতি ইডির তরফে জেরা করা হয়েছিল অভিনেত্রীকে। আর তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করলেই উঠে আসে নোরা ফাতেহির নাম।

প্রসঙ্গত, অভিনেত্রী জ্যাকুলিন তাকে ফাঁসানোর জন্য মিডিয়ায় তার নামে বাজে তথ্য প্রকাশ করেছে যার কারনে তাকে বিব্রতকর পরিস্থিরি স্বীকার হতে হচ্ছে বলে অভিযোগ করেন নোরা ফাতেহি। তিনি আরও বলেন, এসব বিষয়ে জড়িত না কিন্তু মিডিয়া তার ভিন্ন তথ্য প্রকাশ করছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *